একবার রান্নায় তৈরি দুটি স্বাস্থ্যকর খাবার!

রেস্তোরাঁর স্যুপ সকলেই ভালোবাসি আমরা খেতে। বাড়িতে যতই রান্না হোক, ঠিক যেন রেস্তোরাঁর মতো হয় না। দোকানের স্যান্ডুইচগুলোও খেতে কিন্তু ভীষণ সুস্বাদু হয়। কী এমন দেওয়া হয় ওতে? ঠিক ধরেছেন, আজ পাঠকের জন্য হাজির করেছি দোকানের স্যান্ডুইচের মতো সুস্বাদু পুর তৈরির রেসিপি। এই পুর একবার তৈরি করলে অন্তত ৭ দিন ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করা যাবে। তবে হ্যাঁ, এখানেই শেষ নয়। একই রান্নায় স্যান্ডুইচের পুরের পাশাপাশি তৈরি হয়ে যাবে সুস্বাদু চিকেন স্টকও, যা করে তুলবে আপনার যে কোন স্যুপে সুস্বাদু। রেসিপি জানাচ্ছেন সায়মা সুলতানা।

যা লাগবে
একটা আস্ত মুরগি ( ১ কেজি ওজনের)
আদা পাতলা গোল করে স্লাইস করা ১ টেবিল চামচ
রসুন কোয়া ৫-৬ টা
১ টা লেমন গ্রাস এর স্টিক
লেবু পাতা ২টি
গোলমরিচ ফাঁকি ১/৪ চা চামচ
টেস্টিং সল্ট ১/৪ চা চামচ (ঐচ্ছিক)
সাদা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ
পরিমাণমতো লবণ

প্রণালি
-হাঁড়িতে একটা আস্ত মুরগি নিয়ে এর সঙ্গে সমস্ত উপকরণ আর ১০ কাপ গরম পানি দিয়ে মাঝারি আঁচে চুলায় বসিয়ে দিন।
-ফুটে উঠলে ঢাকনা লাগিয়ে আঁচ কমিয়ে দিয়ে রান্না করুন ১ ঘণ্টা।
-এবার ১ ঘণ্টা পর হাঁড়ি থেকে মুরগির মাংস উঠিয়ে নিন।
-হাড্ডি থেকে মাংস ছাড়িয়ে ঝুড়ি করে নিন।
-ঠান্ডা হবার পর এয়ার টাইট বক্সে ভরে ফ্রিজে রাখুন ৩ থেকে ৭ দিনের জন্য। ডিপ ফ্রিজে স্টোর করতে পারেন আরও বেশি দিন।
-এই মাংসের সঙ্গে একটু গোলমরিচ ফাঁকি , মেয়োনিজ আর কেচাপ মিক্স করে পাউরুটিতে পুর দিয়ে দিলেই স্যান্ডুউইচ রেডি। চাইলে এই মাংস ব্যবহার করতে পারেন ঝাল পিঠা বা পরোটার পুর হিসেবেও।
-আর হাঁড়িতে মাংস সেদ্ধ করার পর যে বাকি পানি তা কিন্তু ভুলেও ফেলে দেবেন না। কারণ এতেই সব ফ্লেভার লুকিয়ে আছে। হ্যাঁ, এই হলো চিকেন স্টক যা আপনি যে কোনো স্যুপে ব্যবহার করতে পারবেন। একে ক্লিয়ার চিকেন স্যুপ হিসেব খাওয়া যায়। সামান্য একটু কর্ণফ্লাওয়ারগুলে দিয়ে ঘন করে নিলেই তৈরি ক্লিয়ার চিকেন স্যুপ।

দুটি খাবারই খুব স্বাস্থ্যকর। অসুখে-বিসুখে খুব শক্তি জোগাবে ক্লিয়ার চিকেন স্যুপ। আর রোজকার টিফিন বা নাস্তার ঝামেলা সুন্দর করে মেটাবে স্যান্ডুইচের পুর।