অভাব আর দারিদ্র্যেকে জয় করা তিন কন্যা

 

যমজ তিন বোন সাবেরা, সাকেরা ও জাকেরা। অভাব আর দারিদ্র্যেকে উপেক্ষা করে শুধুমাত্র ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে সাফল্যের দিকে ছুটে চলছে তারা।

এবার এসএসসি পরীক্ষায় সাবেরা ও জাকেরা জিপিএ-৫ আর সাকেরা জিপিএ-৪.৮৯ পেয়ে গরিবের ঘরে চাঁদের আলো ছড়িয়ে দিয়েছে। মা-বাবার মুখে ফুটিয়েছে সুখের হাসি। সিঙ্গারা-পুরি বিক্রেতা বাবা জিয়াউর রহমান ও গৃহিণী মা হোসনে আরা রহমানের সব স্বপ্ন এই তিন মেধাবী মেয়েকে ঘিরেই।

প্রাথমিক সমাপনীতে তিন বোনই একসঙ্গে জিপিএ-৫ লাভের কৃতিত্ব অর্জন করে। শিক্ষাজীবনের প্রথম সেই সাফল্য তাদের দুই চোখে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখায়।

এরপর আড়াইহাজার পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয় তিনজনকে। ২০১৬ সালে এ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায়ও জিপিএ-৫ পাওয়ার অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়ে চমক সৃষ্টি করেছে তারা। এবছর এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সাবেরা ও জাকেরা জিপিএ-৫ আর সাকেরা জিপিএ-৪.৮৯ পায়।

তিন যমজ বোনের মধ্যে সাবেরা বড়। বড় হয়ে সে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হতে চাই।  বাল্যবিয়ে রোধ ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে নিজের মেধা-শ্রমকে কাজে লাগানোর স্বপ্নও তার ভিতরে আছে।

মেজো সাকেরা  বর্তমানে ইঞ্জিনিয়ার হবার স্বপ্ন দেখছে সে।

সবার ছোট জাকেরা বড় হয়ে চিকিৎসক হতে আগ্রহী।

উইমেন জার্নাল/আরএস