রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের নির্যাতনকে ‘বর্বর গণহত্যা’ বললেন শান্তিতে নোবেলজয়ী তাওয়াক্কল

মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনকে গণহত্যা বলে উল্লেখ করেছেন ইয়েমেনের শান্তিতে নোবেলজয়ী তাওয়াক্কল কারমান। তিনি বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের যে দায়িত্ব পালন করার কথা ছিল, দুঃখজনক হলেও সত্য, তা তারা করেনি।’

বাংলাদেশের প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করতে গিয়ে ইয়েমেনের নাগরিক শান্তিতে নোবেলজয়ী মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক তাওয়াক্কল কারমান বাংলায় উচ্চারণ করেন, ‘জয় বাংলা।’

১২ মে (শনিবার) চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠিত এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের ষষ্ঠ সমাবর্তনে যোগ দিয়ে বাংলাদেশ ও দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার সময় তাওয়াক্কল কারমান  ‘বাংলা ভাষায় বাক্য বলেন। আধো আধো বাংলায় তিনি বলেন, ‘আমি বাংলাদেশকে ভালোবাসি।’ এরপর আবার বললেন, ‘জয় বাংলা।’

ইয়েমেনের নাগরিক তাওয়াক্কল কারমান ২০১১ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান।

ইয়েমেনে শান্তি প্রতিষ্ঠা, বাক-স্বাধীনতা, নারীর অধিকার নিয়ে কাজ করছেন তিনি।

নারীদের উচ্চশিক্ষায় প্রতিষ্ঠিত আন্তজার্তিকমানের বিশ্ববিদ্যালয় এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন তাকে এবার

‘অ্যা ব্রিজ টোয়ার্ডস সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট: ওভারকামিং থ্রেটস টু সারভাইভাল’ শীর্ষক আলোচনায় অংশ নিয়ে শান্তিতে নোবেলজয়ী তাওয়াক্কল কারমান বলেন, সম্প্রতি আমরা রোহিঙ্গা রিফিউজি ক্যাম্প পরিদর্শন করেছি। সেখানে ১০০ জনের বেশি রোহিঙ্গা নারীর সঙ্গে কথা বলেছি যারা সবাই মিয়ানমারে ধর্ষণের শিকার। এসব নারী তাদের চোখের সামনে ঘটে যাওয়া বর্বরতার বর্ণনা দিয়েছেন আমাদের। তাদের কারও বাবা, কারও স্বামী, কারও ভাই, কারও ছেলেকে তাদের চোখের সামনে কেটে হত্যা করা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার হয়ে গৃহহারা হয়েছে রোহিঙ্গারা। এটা পুরোপুরি গণহত্যা।

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের নির্যাতনকে ‘বর্বর গণহত্যা’ আখ্যায়িত করে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনাও করেছেন নোবেলজয়ী মানবাধিকারকর্মী ও সাংবাদিক তাওয়াক্কল কারমান।

উইমেন জার্নাল//এইচবি