বৃদ্ধের ধর্ষণে কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা!

জেলা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯০,১৫:০০ এএম

নরসিংদীর মনোহরদীতে প্রতিবেশী বৃদ্ধের ধর্ষণে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরী। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর দফারফার জন্য ওই কিশোরীর পরিবারকে দেড় লাখ টাকা উৎকোচ দেয়ার প্রস্তাব দেন অভিযুক্ত ধর্ষক দুলাল মিয়া (৬৫)। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

অভিযুক্ত দুলাল মিয়া উপজেলার বড়চাপা ইউনিয়নের বীর মাইজদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রায় তিন মাস আগে বৃদ্ধ দুলাল মিয়া পানি খাওয়ার নাম করে ওই কিশোরীর বাড়ি যান। এ সময় পরিবারের লোকজন কৃষিকাজের জন্য বাড়ির বাইরে থাকায় একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করেন দুলাল মিয়া। এরপর বিষয়টি কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। ভয়ে ওই কিশোরী কাউকে কিছু বলেনি। কিন্তু কয়েক মাস পর ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। তখন এলাকায় বিষয়টি জানাজানি হয়।

এরই মধ্যে ধর্ষক দুলাল মিয়া বিষয়টি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের শরণাপন্ন হন এবং দফারফার জন্য কিশোরীর পরিবারকে দেড় লাখ টাকা উৎকোচ দেয়ার প্রস্তাব দেন। ইউপি চেয়ারম্যান তাকে পুলিশে সোপার্দ করেন।

এ ঘটনায় নির্যাতিতা ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে মনোহরদী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।

এ বিষয়ে মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় মামলার পর ধর্ষক দুলাল মিয়াকে গ্রেফতার দেখানো হয়। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই কিশোরীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

উইমেনজার্নাল/এজেএস